শনিবার, ডিসেম্বর ৩Dedicate To Right News
Shadow

‘স্মরণে শেখ মুজিব: সহস্রাব্দের শ্রেষ্ঠ বাঙালী’ দিয়ে যাত্রা শুরু ইউল্যাব প্রেসের

Spread the love

ইউনিভার্সিটি অব লিবারেল আর্টস বাংলাদেশে (ইউল্যাব) এর নতুন সংযোজন ‘ইউল্যাব প্রেস’ এর যাত্রা শুরু হলো। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে নিয়ে বিভিন্ন লেখকদের সংকলন ‘স্মরণে শেখ মুজিব: সহস্রাব্দের শ্রেষ্ঠ বাঙালী’ বইয়ের মোড়ক উন্মোচনের মাধ্যমে যাত্রা শুরু হয় ইউল্যাব প্রেসের। বৃহস্পতিবার (৭ অক্টোবর) রাজধানীর মোহাম্মদপুরে ইউল্যাবের স্থায়ী ক্যাম্পাসে এ মোড়ক উম্মোচন এবং ইউল্যাব প্রেসের উদ্বোধন করেন আইনমন্ত্রী আনিসুল হক, এমপি।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন শেখ মুজিবুর রহমান জন্মশতবার্ষিকী উদযাপন বাস্তবায়ন কমিটির প্রধান সমন্বয়ক ড. কামাল আব্দুল নাসের চৌধুরী, সম্মানিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ইউল্যাব বোর্ড অব ট্রাস্টিজের সদস্য কাজী নাবিল আহমেদ, এমপি। বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে ১৩ জন লেখকের লেখা সংকলিত করে ‘স্মরণে শেখ মুজিব: সহস্রাব্দের শ্রেষ্ঠ বাঙালী’ প্রকাশ করা হয়েছে। বইটি সম্পাদনা করেছেন জাতীয় অধ্যাপক ড রফিকুল ইসলাম এবং অধ্যাপক ড. সামসাদ মর্তূজা। বইটি ইংরেজি এবং বাংলা ভাষায় প্রকাশ করা হয়েছে।

মোড়ক উন্মোচন অনুষ্ঠানের শুরুতেই ইউল্যাবের সংগীত পরিবেশিত হয় এবং এরপর ইউল্যাবের ওপর নির্মিত একটি প্রামাণ্যচিত্র দেখানো হয়। সূচনা বক্তব্যে ইউল্যাবের ভারপ্রাপ্ত উপাচার্য অধ্যাপক ড. সামসাদ মর্তুজা বলেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের পর ইউল্যাবই প্রথম বিশ্ববিদ্যালয় যারা একাডেমিক প্রেসের অনুমোদন পেল। এখন থেকে আমাদের একাডেমিক ও সৃজনশীল সব ধরনের লেখা প্রকাশ পাবে ইউল্যাব প্রেস থেকে। তিনি বলেন, মুজিববর্ষে ইউল্যাব প্রেসের প্রথম প্রকাশনাটি বঙ্গবন্ধুর জীবন, প্রেক্ষাপট ও দর্শনকে বারবার উপলব্ধি করার একটি মাধ্যম হবে বলে আমাদের বিশ্বাস।

অনুষ্ঠানে ভিডিওবার্তায় জাতীয় অধ্যাপক রফিকুল ইসলাম বলেন, বঙ্গবন্ধু সম্পর্কে আমাদের যে ধারণা এবং আমাদের যে মন্তব্য তা এই বইতে প্রকাশ করেছি। আমি সৌভাগ্যবান এই বইয়ের সম্পাদনার সুযোগ পেয়েছি বলে।

ইউল্যাব বোর্ড অব ট্রাস্টিজ সদস্য কাজী নাবিল আহমেদ, এমপি বলেন, ইউল্যাব প্রেসের যাত্রার প্রাক্কালে আমরা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ওপর লেখা বইটি প্রকাশ করতে পেরে সত্যি আনন্দিত। এই গ্রন্থটির একটি বিশেষত্ব হচ্ছে – এই গ্রন্থটির লেখকরা সবাই আমাদের ইউল্যাব পরিবারের সদস্য। তিনি আরও বলেন, ইউল্যাবের প্রতিষ্ঠাতা কাজী শাহিদ আহমেদ আদর্শ বাংলাদেশ গড়ার কারিগর তৈরির লক্ষে এ বিশ্ববিদ্যালয়টি প্রতিষ্ঠা করেছেন। তিনি বলেন, আমাদের লক্ষ্য ছিল যে, আমাদের শিক্ষার্থীরা শুধুমাত্র বিবিএ, কম্পিউটার সায়েন্স পড়বে না বরং অর্থনীতি , ভাষা, সাহিত্য, সংস্কৃতি পড়বে। বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের মধ্যে ইউল্যাবই প্রথম যারা বাংলাদেশে বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ে বাংলা ভাষা শিক্ষাকে বাধ্যতামূলক করেছিল।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে ড. কামাল আব্দুল নাসের চৌধুরী বলেন, তরুণ প্রজন্মকে বঙ্গবন্ধুর দর্শন সম্পর্কে অবহিত করতে হবে। বঙ্গবন্ধু বৈষম্যের বিরুদ্ধে যে জাতীয়তাবাদের ধারণা সেটিও সবাইকে অবহিত হতে হবে। তাহলেই বঙ্গবন্ধুর প্রতি আমরা আমাদের শ্রেষ্ঠ অভিবাদন জানাতে পারবো।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে আইনমন্ত্রী আনিসুল হক জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুরের রহমানকে স্মৃতিচারণ করেন। তিনি বলেন, ৭ই মার্চের বক্তব্যে বঙ্গবন্ধু সবই বলেছেন কিন্তু আইনের মধ্যে থেকে। জনগনের মেন্ডেট যখন পেয়েছিলেন তখনই কেবল তিনি স্বাধীনতার ঘোষণা দিয়েছিলেন। তিনি বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে একটি স্মারক প্রকাশকে অত্যন্ত প্রশংসনীয় উদ্যোগ বলে অভিহিত করেন। তিনি বলেন ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট বঙ্গবন্ধুকে সপরিবারে হত্যা করার পর আমাদের এমন একটা সময় এসেছিল যখন, সরকারি অর্থায়নে বঙ্গবন্ধুকে ভুলে যাওয়ার একটা প্রচেষ্টা চলছিল। আজকে জননেত্রী শেখ হাসিনা আমাদের কারাগারের রোজনামচা উপহার দিয়েছেন, ‘অসমাপ্ত আত্মজীবনী’ প্রকাশ হয়েছে। ফলে আমরা বঙ্গবন্ধু সম্পর্কে জানার সুযোগ পাচ্ছি।

মোড়ক উম্মোচন অনুষ্ঠানে ‘স্মরণে শেখ মুজিব: সহস্রাব্দের শ্রেষ্ঠ বাঙালী’ গ্রন্থের লেখকবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। লেখকবৃন্দ স্ব স্ব রচনার অংশবিশেষ পড়ে শোনান।

সবশেষে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন ইউল্যাব বোর্ড অব ট্রাস্টিজের বিশেষ উপদেষ্টা অধ্যাপক ইমরান রহমান। অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে ইউল্যাবের ট্রেজারার অধ্যাপক মিলান কুমার ভট্টাচার্য, রেজিস্ট্রার লে. কর্নেল ফয়জুল ইসলাম (অব), বিভিন্ন অনুষদের ডিন, বিভাগীয় প্রধানগণ, শিকক্ষগণ ও প্রশাসনিক কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *