সোমবার, অক্টোবর ৩Dedicate To Right News
Shadow

হিলসের উদ্যোগে উদ্যোক্তা উন্নয়নে প্রযুক্তির ব্যবহার বিষয়ক প্রশিক্ষণ

Spread the love

হিলস ই-কমার্স সোসাইটি উদ্যোক্তার টেকসই পরিবর্তনের কথা চিন্তা করে। এখন সময়টা ডিজিটাল। এ সময়ে টিকে থাকার লড়াইটা কঠিন থেকে কঠিনতর হবে যদি না প্রযুক্তিকে এড়িয়ে কাজ করতে চাওয়া হয়। সে জায়গা থেকে হিলস মনে করে কিছু বেসিক বিষয় জানাটা উদ্যোক্তাদের জন্য অত্যন্ত জরুরি। এই অনুধাবন থেকে হিলস বাংলাদেশ এর পাহাড় সমতলের ৩০ জন উদ্যোক্তার জন্য আয়োজন করেছিলো ৫ দিনব্যাপী “Hill Basic Entrepreneurship Training on Technology”

৩০ জুলাই থেকে থেকে ৩ আগষ্ট পর্যন্ত অনুষ্ঠিত উক্ত ট্রেনিং সেশন পরিচালনা করেন আন্তর্জাতিক ফ্রিল্যান্সার (গ্রাফিক্স ডিজাইনার) এবং হিল ই-কমার্স সোসাইটি এর মডারেটর এস এফ জ্যোতি।

৫ দিনব্যাপী এই আয়োজনে উদ্যোক্তাদের শেখানো হয়েছে গুগল ফর্ম তৈরি, গুগল বিজনেস আইডি তৈরি করা, পেইজ সেটআপ, বিজনেস স্যুট ব্যবহার, আইডিতে পেইজ সংযুক্ত করা।

প্রশিক্ষণ এর উদ্বোধন করেন হিল ই-কমার্স সোসাইটির “শৃঙ্খলা বিষয়ক এডমিন” ননিকা চাকমা।

তিনি বলেন, “আমি খুবই আনন্দিত আর কৃতজ্ঞ,এমন একটা ট্রেনিং এর অংশ হতে পেরে।উদ্বোধক হিসেবে কেবল উদ্বেধন না করে নিজেও প্রশিক্ষণ কার্যক্রম যতোটা সম্ভব অবলোকন করেছি। সারাদিন অক্লান্ত পরিশ্রম করার পরে রাতে তাড়াতাড়ি ঘুম চলে আসে আমার।কিন্তু শুধু মাত্র এই প্রশিক্ষণটার জন্য জেগে থাকতাম।একদিন তো মোবাইল হাতে ঘুমিয়েই পড়েছিলাম। প্রশিক্ষক হিসেবে এসএফ জ্যোতি’র দক্ষতা এবং আন্তরিকতা মুগ্ধ করার মতো। প্রশিক্ষণার্থীরাও বেশ স্বতঃস্ফূর্ত ছিলেন। সবমিলিয়ে অসাধারণ অভিজ্ঞতা হলো।”

এসএফ জ্যোতি একজন আন্তর্জাতিক ফ্রিল্যান্স গ্রাফিক্স ডিজাইনার। তাঁর নিজের প্রচন্ড ব্যস্ততার মাঝেও তিনি হিল এর মডারেটর হিসেবে গ্রুপের উদ্যোক্তাতের প্রতি এক ধরণের দায়িত্ববোধ এর জায়গা থেকে টানা ৫ দিন সময় দিয়েছেন।

প্রশিক্ষণ বিষয়ে জ্যোতি তার অভিমত ব্যক্ত করে বলেন, “ধন্যবাদ হীল ই কমার্স সোসাইটি পরিবারকে আমাকে প্রশিক্ষক হিসেবে নিযুক্ত করার জন্য।
আমি শিখাতে চেয়েছি বন্ধু বা বোন হয়ে যেন ট্রেনিং সবাই ভয় ভীতিহীন ভাবে করতে পারে।

এটাও চেষ্টা করেছি প্রতিটি ট্রেইনিকে এক সাথে এগিয়ে নিয়ে যেতে। আশা করি আমার শেখানো টপিকগুলো সবার কাজে আসবে। আমি মনে করি ব্যবসা মানেই বিক্রি হয়, ব্যবসা মানে গুছিয়ে সাজিয়ে একদিন ব্রান্ড হিসেবে একদিন সবার কাছে তুলে ধরার চেষ্টা।”

এই ট্রেইনিং সেশনে হিল এর ৩০জন উদ্যোক্তা যাঁরা অংশগ্রহণের সুযোগ পেয়েছিলেন তাঁরা হলেন-অর্পণ চাকমা,বি জামান রিপিট,অনামিকা দত্ত,রিমা চৌধুরী,আমিনা বেগম,ফারহানা হক রহিমা, শশী সাহা,এমেলি চাকমা, জান্নাতুল ফেরদৌস, কানিজ রুমকী, লায়লা কামরুন নাহার, মাফরুহা চৌধুরী,শাহীন,মেজবা-উন-নেছা মিজবা,এমডি শাহীন, মিথি চাকমা, নিমা চাকমা,রুবিনা বেগম,রুবাইয়া সুলতানা,রুদাবা রাইয়ান,সাফায়েত হিমেল,সাবিনা হিরা,শামীমা হক,স্বপ্না চাকমা, সৈয়দা রুবিনা সুলতানা,তাবাসুম সেঁজুতি,তামান্না রোমানা,তানিয়া আখতার,উর্মি গোসামী নীড় ও টিটু কর্মকার।

প্রশিক্ষণার্থীবৃন্দ প্রশিক্ষণ বিষয়ে বেশ উচ্ছ্বসিত ছিলেন। এর মধ্যে অর্পন লিভা চাকমা বলেন- ” প্রশিক্ষকের ধৈর্য আর হাতে কলমে ধরে ধরে শেখানোটা খুব ভালোলেগেছে। আগামীতেও জ্যোতি আপুর কাছে আরও প্রশিক্ষণ নিতে চাই। সেইসাথে হিলস এর প্রতিষ্ঠাতা এডমিন মনি পাহাড়ী আপুর প্রতিও কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি।”

পাহাড়ের পাশাপাশি সমতলের উদ্যোক্তারাও অংশ নেন প্রশিক্ষণে। বাগেরহাট এর উদ্যোক্তা রুবাইয়া সুলতানা বলেন, “প্রযুক্তিভীতি কেটে গেছে এই প্রশিক্ষণে অংশ নিয়ে। নতুন নতুন অনেককিছু শিখেছি। যেটা উচ্চারণ করতে সাহস হতো না এখন তার অনেককিছু নিজেই করতে পারছি। হিল এর প্রতি কৃতজ্ঞতার জায়গাটা দিনদিন বেড়েই চলেছে।”

৫ দিনব্যাপী অনলাইন প্রশিক্ষণের সঞ্চালনকারী হিসেবে ছিলেন হিল ই-কমার্স সোসাইটি’র মডারেটর হুমায়েরা কবির ঐশী। তিনি সঞ্চালনার পাশাপাশি উদ্যোক্তাদের সাথে সার্বক্ষণিক যোগাযোগ রক্ষা করেছেন।

প্রশিক্ষণের সমাপনী ঘোষণা করেন প্রশিক্ষণ সমন্বয়ক ও হিল এর যোগাযোগ বিষয়ক এডমিন মো: মাজেদুল ইসলাম। তিনি বলেন- “উদ্যোক্তাদের শিক্ষা এবং প্রশিক্ষণ তাদের বাণিজ্যিক সুযোগ, আত্মমর্যাদা, জ্ঞান এবং তাদের নিজস্ব দক্ষতা সনাক্ত করার জন্য আবশ্যক। সমসাময়িক ডিজিটাল বিজনেস এর অবয়বে ফেসবুক ভিত্তিক গ্রুপসমূহ উদ্যোক্তাদের প্রসারে অপরিসীম ভূমিকা পালন করে। আর তাই নিজের ব্যবসাকে সফল করতে ইন্টারনেট ভিত্তিক কার্যক্রম সূচারুরুপে সম্পন্ন করতে প্রশিক্ষণ এর প্রয়োজন হয়ে পড়ে।এ লক্ষ্যে হিল ই-কমার্স সোসাইটি অত্র গ্রুপের উদ্যোক্তাদের জন্য প্রাথমিক পর্যায়ের একটি প্রশিক্ষণের আয়োজন করে। প্রশিক্ষণে উদ্যোক্তাদের অভাবনীয় প্রতিক্রিয়া আমাদের জন্য বিশেষ এক প্রাপ্তি। ইনশাআল্লাহ ভবিষ্যতে আরো Advanced level এ এই বিষয়ে আমরা প্রশিক্ষণ এর আয়োজন করতে আমরা বদ্ধপরিকর। আশা করি এভাবেই ধীরে ধীরে উদ্যোক্তাদের প্রসারে আমরা যদি সামান্যতম অবদান রাখতে পারি তাই হবে আমাদের পাথেয়।”

হিল ই-কমার্স সোসাইটি একজন উদ্যোক্তাকে সবদিক থেকে তৈরি করার কাজটা শুরু থেকে করে আসছে। প্রযুক্তির সাথে সহজ যোগাযোগ তৈরিতে ও উদ্যোক্তাকে আরও আত্মপ্রত্যয়ী করতে হিলস এর এ ধরণের আয়োজন বিরাট ভূমিকা রাখবে বলে মনে করেন সম্পৃক্ত সকলে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.