সোমবার, জুন ২৪Dedicate To Right News
Shadow

“ক্যারিয়ার ক্যাম্পেইন”-এর মাধ্যমে শুরু হলো সিলেট বিভাগের ‘বিপিও সামিট বাংলাদেশ ২০২৩’

Spread the love

দেশের বিপিও/আউটসোর্সিং শিল্পের জন্য নিবেদিত একক ও কেন্দ্রীয় বাণিজ্য সংস্থা ‘বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অফ কনট্যাক্ট সেন্টার অ্যান্ড আউটসোর্সিং (বাক্কো)’-এর উদ্যোগে এবং বাংলাদেশ সরকারের তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের অন্তর্গত তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি অধিদপ্তর ও বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের আওতাভুক্ত ‘বিজনেস প্রোমোশন কাউন্সিল’-এর সার্বিক সহযোগিতায় রাজশাহীতে অভিষেকের পর বিভাগীয় পর্যায়ের  “বিপিও সামিট বাংলাদেশ ২০২৩”  এবার সিলেটে! সিলেট বিভাগে ৫-৬ জুন-দুইদিনব্যাপী নানান কর্মসূচীর মাধ্যমে সাড়ম্বরে উদযাপিত হচ্ছে “বিভাগীয় বিপিও সামিট বাংলাদেশ ২০২৩ (সিলেট)” ।

সামিটের ‘ক্যারিয়ার ক্যাম্পেইন’-এর অংশ হিসেবে দক্ষতা উন্নয়ন বিষয়ক “সম্ভাবনাময় কর্মক্ষেত্রের নতুন দিগন্ত” শীর্ষক সেমিনার অনুষ্ঠিত হয় ‘সিলেট পলিটেকনিক ইনস্টিটিউট’-এ।অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন প্রতিষ্ঠানের সম্মানিত অধ্যক্ষ মোহাম্মদ রিহান উদ্দিন।

শিক্ষার্থীদের দক্ষতা উন্নয়নের উদ্দেশ্যে আয়োজিত এ সেমিনারে বক্তব্য রাখেন তথ্যপ্রযুক্তি খাতের উন্নয়নের মাধ্যমে ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মানে উল্লেখযোগ্য ভূমিকা রেখে চলা দেশের শীর্ষস্থানীয় বিপিও ব্যক্তিত্বগণ। এ দিন একটি আকর্ষণীয় অধিবেশনের মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের পেশাগত উজ্জ্বল ভবিষ্যৎ গড়ে তোলার দিকনির্দেশনা দিয়েছেন বিপিও শিল্পের নেতৃস্থানীয় ব্যক্তিগণ।

সিলেট পলিটেকনিক ইন্সটিটিউটে আয়োজিত এ সেমিনারে বক্তব্য রাখেন বাক্কো পরিচালক ডাঃ তানজিবা রহমান, ‘এইচ এম সি টেকনোলজি লিমিটেড’ এর চিফ টেকনোলজি অফিসার জনাব মৃধা মো: মাহফুজ-উল-হক, এবং ‘জুবিসফট লিমিটেড’-এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক জনাব মো: ফরহাদ হোসেন।

প্রথম ধাপের ক্যারিয়ার কাউন্সেলিং বিষয়ক কর্মশালায় বিপিও শিল্পের সম্ভাবনাময় দিকগুলো শিক্ষার্থীদের সামনে তুলে ধরে এ খাতে আকর্ষণীয় ক্যারিয়ার গড়ে তুলতে উৎসাহ যোগানো হয়। বর্তমান সময়ে তথ্য-প্রযুক্তি খাতে কর্মসংস্থানের সুযোগ অন্য যে-কোনো খাতের চেয়ে বেশি, তাই বক্তারা এ সেক্টরে ক্যারিয়ার গড়ার ব্যাপারে শিক্ষার্থীদের উদ্বুদ্ধ করেন, কর্মদক্ষতা বৃদ্ধির দিকে বিশেষ গুরুত্বারোপ করেন এবং এখন থেকেই নিজের কার্যক্ষেত্র চিহ্নিত করে ভবিষ্যতের জন্য নিজেকে প্রস্তুত করার পরামর্শ ও দিকনির্দেশনা দেন। সিলেট পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটে আয়োজিত এ অ্যাক্টিভেশন প্রোগ্রামে আলোকপাত করা হয় বিজনেস প্রসেস আউটসোর্সিং শিল্পের সুদূরপ্রসারী লক্ষ্যের দিকে, যা বাস্তবায়নের মাধ্যমে এ খাতটি দখল করে নিতে পারে দেশের অর্থনীতিতে সর্বোচ্চ ভূমিকা রেখে চলা শিল্পখাতগুলোর মধ্যে প্রথম অবস্থান। এছাড়াও শিক্ষার্থীদের একাডেমিক যোগ্যতার পাশাপাশি সংশ্লিষ্ট কি কি কাজে অবশ্যই দক্ষ হতে হবে, আইটি-আইটিইএস ও বিপিও প্রতিষ্ঠানসমূহে ক্যারিয়ার গড়তে চাইলে কিভাবে নিজেকে তৈরি করতে হবে, এবং এ সেক্টরে নিয়োগের ক্ষেত্রে নিয়োগকর্তাগণ প্রার্থীর কোন কোন বিষয়গুলোর দিকে লক্ষ্য রেখে থাকেন, সে সকল বিষয়ে সেমিনারে আলোচনা করা হয়, পরিচয় করিয়ে দেয়া হয় বাংলাদেশের বিপিও শিল্পের জন্য নিবেদিত কেন্দ্রীয় ও একক বাণিজ্য সংস্থা বাক্কো’র সঙ্গে।

শিক্ষার্থীদের বাক্কো’র সঙ্গে পরিচয় করিয়ে ডাঃ তানজিবা রহমান তার বক্তব্যে বলেন, “বাক্কো ২০২৫ সালের মধ্যে বিপিও শিল্পখাতে ১ বিলিয়ন মার্কিন ডলার রাজস্ব আয় তৈরি ও বিপিওক্ষেত্রে ১ লক্ষ কর্মসংস্থান সৃষ্টির পাশাপাশি বাংলাদেশ সরকারের “স্মার্ট বাংলাদেশ ২০৪১”-লক্ষ্য অর্জনে সরকারি, বেসরকারি ও আন্তর্জাতিক পর্যায়ের অসংখ্য প্রতিষ্ঠান ও অংশীজনদের সঙ্গে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে।”

শিক্ষার্থীদের সঙ্গে মতবিনিময় সভা, কুইজ টেস্ট এবং বিজয়ীদের মধ্যে আকর্ষণীয় পুরষ্কার বিতরনী অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে সফলভাবে সম্পন্ন হয় এ সেমিনার।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *