সোমবার, মে ২৭Dedicate To Right News
Shadow

বিশুদ্ধতার অঙ্গীকার নিয়ে যাত্রা করছে ‘ন্যাচুরা কেয়ার’

Spread the love

প্রসাধনী সামগ্রীর ক্ষেত্রে বিশুদ্ধতার অঙ্গীকার নিশ্চিত করে যাত্রা করেছে ‘ন্যাচুরা কেয়ার’। প্রাকৃতিক সুস্থতার জগতে স্বাগত জানাতে দুর্দম, দুর্জয়, দুর্বার– অঙ্গীকার নিয়ে বাংলাদেশের বাজারে আত্মপ্রকাশ করেছে প্রতিষ্ঠানটি।
অনিরাপদ রূপচর্চা চিরতরে কেড়ে নিতে পারে আসল সৌন্দর্য! বেশিরভাগ কসমেটিকস পণ্যই কেমিক্যাল দিয়ে তৈরি। কিন্তু ‘ন্যাচুরা কেয়ার’ ব্র্যান্ডটির প্রতিটি পণ্যের উপকরণ শতভাগ পরীক্ষিত। যা নিশ্চিত করবে প্রাকৃতিক যত্ন ও বিশুদ্ধতা।
সম্প্রতি কালিগঞ্জের সিসিইউএলবি রিসোর্ট ও কনভেনশন হলে অনুষ্ঠিত এক অনাঢ়ম্বর অনুষ্ঠানে ব্র্যান্ডটি উন্মোচন করা হয়।
দিনব্যাপী অনুষ্ঠানের দ্বিতীয় অংশে ‘ন্যাচুরা কেয়ার’ এর আনুষ্ঠানিক যাত্রা ঘোষণা হয়। এ সময় প্রতিষ্ঠানটির ব্যবস্থাপনা পরিচালক আসিফ ওয়াহাব খান, সি.ই.ও. মোঃ নাজিম উদ্দীন, হেড অফ বিজনেস স্ট্র্যাটেজি আদিত্য সোম, হেড অফ মার্কেটিং শামস আরিফীন, হেড অফ সেলস মোঃ ইমতিয়াজ ওসমান তালুকদার, হেড অফ অপারেশন মোঃ খালেদ হোসেন, মাদার প্রতিষ্ঠান “পদ্মা গ্রুপ অব কনভার্টারস্” এর জি.এম. অপারেশন গোলাম কিবরিয়া খান, ডিস্ট্রিবিউশন পার্টনার মৌসুমি নেটওয়ার্ক লিমিটেড এর হেড অফ সেলস সুব্রত কুমার কুন্ডু সহ অন্যান্য উচ্চপদস্থ কর্মকর্তা এবং সেলস কর্মচারীরাও উপস্থিত ছিলেন।
অনুষ্ঠানে প্রতিষ্ঠানটির ব্যবস্থাপনা পরিচালক আসিফ ওয়াহাব খান বলেন, ঝকঝকে সুন্দর ত্বক সৌন্দর্যের চাবিকাঠি। নিজেকে সবসময় সুন্দর ও আকর্ষণীয় রাখাটা সুস্থ জীবনেরই একটা অংশ। গুণগত মান নিশ্চিত করা ‘ন্যাচুরা কেয়ার’ প্রসাধনী খাতে বৈপ্লবিক পরিবর্তনের অঙ্গীকার নিয়ে দেশে যাত্রা শুরু করছে।
তিনি বলেন, পরিবেশগত দূষণের কারণে ত্বকের সমস্যায় কমবেশি প্রত্যেককেই পড়তে হয়। ত্বকের যত্নে আপনি হাত বাড়ালেই বাজারে হরেক রকমের প্রসাধনী পাবেন। আমরা গ্রাহককে রং ফর্সার গ্যারান্টি দিব না, কিন্তু সর্বোচ্চ কোয়ালিটি প্রসাধনী পণ্যের গ্যারান্টি দিব। যার মাধ্যমে একজন ব্যবহারকারী প্রাকৃতিক সৌন্দর্য ফিরে পেতে পারে।
অনুষ্ঠানে কোম্পানির প্রতিটি ব্র্যান্ডের সকল উপকরণ ও বিস্তারিত তথ্য জানানোর পাশাপাশি দর্শকদের সামনে তুলে ধরা হয় প্রতিষ্ঠানটির আগামীদিনের সেলস প্ল্যান, ফিল্ড প্ল্যান প্রভৃতি। যার মাধ্যমে দর্শক ও গ্রাহকরা ন্যাচুরা কেয়ার সর্ম্পকে প্রত্যক্ষ ধারণা পান।
অনুষ্ঠানে প্রতিষ্ঠানের সিইও নাজিম উদ্দিন বলেন, এই উপমহাদেশে জেনুইন ব্র্যান্ডগুলোর পণ্যের চাহিদা রয়েছে। ত্বকের প্রসাধনী ও চুলের তেলের বাজার দেশের এবং বাইরের বিভিন্ন ব্র্যান্ডের উপস্থিতিতে অত্যন্ত শক্তিশালী। আমরা আশা করি ন্যাচুরা কেয়ার শীর্ষস্থানীয় ব্র্যান্ডগুলোর মধ্যে অবস্থান নিশ্চিত করবে। পণ্যের গুণগত মান, বাজারে পণ্যের দীর্ঘ সময়ের উপস্থিতি এবং ব্যবহারকারীদের আস্থা এই ব্র্যান্ডকে উল্লেখযোগ্যভাবে বাজারে টিকিয়ে রাখতে সক্ষম হবে।
হেড অফ বিজনেস স্ট্র্যাটেজি আদিত্য সোম বলেন, সম্প্রতি এক গবেষণায় দেখা যাচ্ছে দেশে যে পরিমাণ কসমেটিকস অর্থাৎ স্নো, ক্রিম, শ্যাম্পু, সাবান, লোশন, আফটার-শেভ লোশন, পারফিউম এসব চাহিদা রয়েছে তার ১৫ শতাংশ পূরণ হচ্ছে দেশীয় কোম্পানির উৎপাদনে। আর ১৫ শতাংশ -আমদানি করা বিদেশি পণ্য। বাকি ৭০ শতাংশ কসমেটিকস নকল ও ক্ষতিকারক উপাদান দিয়ে তৈরি হচ্ছে। এই অবস্থায় দেশে নির্ভরশীল প্রসাধনী ব্র্যান্ড হিসেবে গ্রাহকরা আস্থা রাখতে পারবেন ন্যাচুরায়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *