শনিবার, জুন ২২Dedicate To Right News
Shadow

ভূমি দস্যুদের তাণ্ডবে আহত দুই এসআইসহ পুলিশের দুই সোর্স

Spread the love

দেবহাটা সাতক্ষীরা সংবাদদাতা

দেবহাটা উপজেলায় ভূমি দস্যুদের দৌরাত্বে স্থানীয় বাসিন্দারা চরম আতঙ্কে দিন কাটাচ্ছেন। এ ব্যাপারে দেবহাটা পুলিশ প্রশাসনের নিরবতা এলাকাবাসীর মনে উদ্বেগ সৃষ্টি করেছে। জানা যায়, দেবহাটা উপজেলার পারুলিয়া মৌজার খলিশাখালী ঘেরে প্রায় ১২০০ বিঘা ব্যক্তি মালিকানাধীন জমিতে ভূমিদস্যুদের লোলুপ দৃষ্টি পড়েছে। ভূমিদস্যুরা জোর করে এসব জমিতে থাকা মাছের ঘের থেকে মাছ নিয়ে যাচ্ছে। হুমকি-ধামকি দিয়ে এসব জমিতে বসবাসরত বাসিন্দাদেরকে তাদের নিজ ভূমি থেকে বিতারিত করছে। গত ১১ সেপ্টেম্বর গভীর রাতে এই সব ভূমি সন্ত্রাসীরা মাছের ঘেরে লুটপাট করে ও ঘের মালিকদের মারধর করে সম্প্রতি সাতক্ষীরা জেলার আশাশুনি থানার বদরতলা ভূমিদস্যু ও মাদক ব্যবসায়ীদের মারপিটে ২এস আই ও ২ সোস সহ আহত হয়েছে ৪জন। ঘটনা টি ঘটে গত ৩ অক্টোবর রাত ৮টা ৩০ মিনিটে। আশাশুনি থানার কর্মরত এস,আই আমিরুল ও জাহাঙ্গীর মাদক পাচারের গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান পরিচালনা করেন।অভিযানে মাদক ব্যবসায়ীও ভুমিদশূ মনিরুল (৩২) পিতার আইয়ুব আলী (৬০) রবিউল গাজী (৩৩) পিতা- আরশাদ আলি গাজী (৫৫) কে তিন হাজার পিস ইয়াবা, ২ কেজি গাজা ও ২০০ পিস ফেনসিডিল সহ আটক করে।আটককৃত আসামি ও মালামাল সহ তাদেরকে থানায় নিয়ে যাওয়ার সময়, পাশে লুকিয়ে থাকা তাদের সহযোগী ভুমিদস্যু মজিদ গাজী (৩৬) পিতা- অজ্ঞাত, আরিজুল (৩৫) পিতা- মৃত গহর গাজী, সাইফুল গাজী (৩২) পিতা- বাক্কার গাজী (৫৫) সহ নাম না জানা আরও কয়েক জন ভুমিদস্যু তাদের উপর অতর্কিত অস্ত্র নিয়ে হামলা চালায়, হামলায় ধারালো অস্ত্রের কোপে ও লাঠির আঘাতে পুলিশের সোর্স ও এস আই আমিরুল, জাহাঙ্গীর গুরুতর আহত করে ভুমিদস্যুরা পুলিশের কাছ থেকে আসামি সহ আটক কৃত মালামাল নিয়ে পালিয়ে যায়।

আশাশুনি থানার অফিসার ইনচার্জ গোলাম কবির সাহেব সংবাদ পেয়ে, থানার ফোর্স নিয়ে ঘটনা স্থানে এসে তাদেরকে গুরুতর জখম অবস্তায় উদ্ধার করে এম্বুলেন্স করে দ্রুত চিকিৎসার জন্য সাতক্ষীরা মেডিকেল হাসপাতালে পাঠিয়ে দেন। এই ঘটনার ঘটার পর এখান পর্যন্ত কোনো আসামি ধরা পড়েনি।

আসামি সম্পর্কে জানতে চাইলে স্হানীয়রা বলেন, ঘটনায় জড়িতরা হলো নামধারি সস্তাসী, ভুমিদস্যু, ডাকাতি, চোরাকারবারি, অন্যের জমি দখল, মাদক ব্যবসা, ছিনতাই সহ নানা অপরাধমূলক কাজের সঙ্গে জড়িত। এলাকায় এাস সৃষ্টিকারী একাধিক মামলার আসামি এরা।কয়েক দিন আগে মালিকানাধীন রেকর্ডকৃত সম্পত্তির খলিশা খালির ঘের দখল করে লুটতরাজ চালাচ্ছে এই ঘটনায় জড়িতরা। আশাশুনি থানার অফিসার ইনচার্জ গোলাম কবির সাহেবের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, খুব দ্রুত ঘটনায় জড়িতদের আইনের আওতায় আনা হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *