সোমবার, জুন ২৪Dedicate To Right News
Shadow

নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়ে পরিকল্পিত বৃক্ষরোপণ শুরু

Spread the love

‘গাছ লাগাই, রক্ষা করি’-প্রতিপাদ্যকে সামনে নিয়ে জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ে শুরু হয়েছে পরিকল্পিত বৃক্ষরোপণ কর্মসূচি। ২৭ জুলাই বিকেলে ২০টি বুদ্ধ নারিকেল গাছের চারা রোপণের মধ্যদিয়ে বৃক্ষরোপণ কর্মসূচির শুভ সূচনা করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের মাননীয় উপাচার্য প্রফেসর ড. সৌমিত্র শেখর। প্রশাসনের এই উদ্যোগের মধ্য দিয়ে সবুজ ক্যাম্পাস প্রতিষ্ঠায় বিশ্ববিদ্যালয় পরিবারের দীর্ঘদিনের স্বপ্ন পূরণ হতে চলেছে।
এ উপলক্ষ্যে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপাচার্য প্রফেসর ড. সৌমিত্র শেখর বলেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শুধু একজন সফল রাষ্ট্রনায়কই নন তিনি ছিলেন শিক্ষক, একজন দার্শনিক। বঙ্গবন্ধু বলেছিলেন, ‘প্রত্যেকে একটি করে গাছ লাগিয়ে তা রক্ষা করুন।’ বঙ্গবন্ধু বৃক্ষরক্ষার প্রতি গুরুত্ব দিয়েছিলেন। আমরা তাঁর দেখানো পথ অনুসরণ করছি। আমরা তাঁর আহ্বান থেকে একটি স্লোগান গ্রহণ করেছি এবং সেটি হলো: ‘গাছ লাগাই, রক্ষা করি’।
বৃক্ষ রক্ষার প্রতি গুরুত্বারোপ করে উপাচার্য আরও বলেন, গাছ শুধু লাগালেই হবে না, সেগুলো রক্ষাও করতে হবে। কেননা গাছ লাগানো এখন ফ্যাশনে পরিণত হয়েছে। ফেসবুকের কারণে এটি হয়ে উঠেছে মহা হুজুগ। গাছ লাগিয়ে সেগুলো পরিচর্যার মাধ্যমে রক্ষা করাই বড়ো চ্যালেঞ্জ। এই চ্যালেঞ্জ আমাদের নিতে হবে। গাছ রক্ষা করে তাতে ফুল ফোটাতে হবে। নিসর্গপ্রেমী ছাড়া এটি অন্যকেউ ভালোভাবে জানেন না। আমরা আমাদের ক্যাম্পাসকে একটি সবুজ নন্দন কানন হিসেবে গড়ে তুলতে চাই। তারই অংশ হিসেবে পরিকল্পিতভাবে বৃক্ষরোপণ করা হবে।
বৃক্ষরোপণ নিয়ে প্রশাসনের পরিকল্পনা তুলে ধরে প্রফেসর ড. সৌমিত্র শেখর বলেন, আমরা পরিকল্পনা নিয়েছি, এবার যে গাছগুলো লাগানো হবে, অন্তত ৫০ বছর সেই গাছগুলো বাঁচবে। ইটের রক্ষা-বেষ্টনী তৈরি করা হচ্ছে, যাতে গাছগুলোকে বিরূপ-পক্ষের হাত থেকে বাঁচানো যায়। এ ব্যাপারে সকলের বিশেষ করে ছাত্র-ছাত্রীদের সহযোগিতা কাম্য।
অনুষ্ঠানে পরিকল্পনা ও উন্নয়ন দপ্তরের পরিচালক ও রেজিস্ট্রার (অ.দা.) প্রকৌশলী হাফিজুর রহমান বলেন, ক্যাম্পাসের বিভিন্ন স্থানে পরিকল্পিত গাছ লাগানো বিশ্ববিদ্যালয়ের একটি ধারাবাহিক কাজ। এর অংশ হিসেবে মাঠের দুই পাশে গাছ লাগানোর ব্যবস্থা করা হয়েছে। পরবর্তীতে ক্যাম্পাসের বিভিন্ন অংশে পরিকল্পিত বৃক্ষরোপণ কর্মসূচী অব্যাহত থাকবে।
বৃক্ষরোপণ কর্মসূচির আওতায় ইতোমধ্যেই বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের উদ্যোগে বিশ্ববিদ্যালয়ের শেখ রাসেল কেন্দ্রীয় খেলার মাঠের দক্ষিণ ও পূর্ব পাশে বৃক্ষরোপণের ব্যবস্থা করা হয়েছে। বৃক্ষরক্ষার জন্য ইটের বেষ্টনী তৈরীর কাজও এগিয়ে নেওয়া হয়েছে।
বিশ্ববিদ্যালয়ের সৌন্দর্য্য বর্ধন কমিটির সদস্য সচিব দ্রাবিড় সৈকত জানান, বৃক্ষরোপণ কর্মসূচির আওতায় পুরো ক্যাম্পাসে প্রায় আট শতাধিক গাছ লাগানো হবে। এর মধ্যে আছে রক্তন, বুদ্ধ নারিকেল, সুলতান-চাঁপা, উদাল, সুপারি, অশোক, নাগলিঙ্গম, কুরচি, লোহা, গর্জন, শিমুল, পলাশ, আমলকি, বহেরা, হরতকি, নাগেশ্বর, পুত্রঞ্জীব, ঢাকিজাম, লাল সোনাইল, টিকোমা, সিভিটসহ নানা প্রজাতির গাছ। এরমধ্যে কেন্দ্রীয় মাঠের চারপাশে ২৯৫ টি চারা ও বাকি গুলা ক্যাম্পাসের বিভিন্ন জায়গায় রোপণ করা হবে। এসব গাছের মধ্যে যে ভিন্নতা সে পরিকল্পনা বাস্তবায়িত হলে ক্যাম্পাস যেমন সবুজ হয়ে উঠবে তেমনি বৃক্ষবৈচিত্র্যে ভরে উঠবে।
অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন স্টামফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ভাস্বর বন্দ্যোপাধ্যায়, বিশ্ববিদ্যালয়ের সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের ডিন প্রফেসর ড. নজরুল ইসলাম, বিজ্ঞান ও প্রকৌশল অনুষদের ডিন প্রফেসর ড. উজ্জ্বল কুমার প্রধান, চারুকলা অনুষদের ডিন প্রফেসর ড. তপন কুমার সরকার, প্রক্টর সঞ্জয় কুমার মুখার্জী, রেজিস্ট্রার (অ.দা.) প্রকৌশলী হাফিজুর রহমানসহ অন্যরা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *