মঙ্গলবার, ফেব্রুয়ারি ৭Dedicate To Right News
Shadow

সাহিত্য

বইমেলায় এ কে ফেরদাউছ আহমেদের প্রথম কবিতার বই ‘আনাবিয়া এবং জলনূপুর’

বইমেলায় এ কে ফেরদাউছ আহমেদের প্রথম কবিতার বই ‘আনাবিয়া এবং জলনূপুর’

শিরোনাম, সাহিত্য
অমর একুশে বইমেলায় এসেছে এ কে ফেরদাউছ আহমেদ-এর প্রথম কবিতার বই 'আনাবিয়া এবং জলনূপুর'। বইটি প্রকাশ করেছে বিশ্ব সাহিত্য ভবন। প্রচ্ছদ করেছেন লেখক নিজেই। দাম ২৫০ টাকা। বইটি পাওয়া যাবে মেলার মাঠে বিশ্ব সাহিত্য ভবন প্যাভিলিয়নে। ০১৭১১৫৬১৯৯০ নম্বরে যোগাযোগ করে অনলাইনেও কেনা যাবে। ৫ ফেব্রুয়ারি ২০২৩ রবিবার বিকেল ৪টায় বিশ্ব সাহিত্য কেন্দ্র মিলনায়তনে এ কে ফেরদাউছ আহমেদ-এর প্রথম কবিতার বই 'আনাবিয়া এবং জলনূপুর'-এর প্রকাশনা উৎসব অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হবে। উৎসব অনুষ্ঠানে দেশ বরেণ্য কবিবৃন্দ আলোচনায় অংশ নেবেন। প্রকৌশল কর্মযজ্ঞে ডুবে থাকা সারা দিনমান, অথচ মন পরে থাকে জীবনের বাঁকে বাঁ...
একুশে গ্রন্থমেলায় পিতা-পুত্রের পাঁচ বই

একুশে গ্রন্থমেলায় পিতা-পুত্রের পাঁচ বই

শিরোনাম, সাহিত্য
এবারের অমর একুশে গ্রন্থমেলায় প্রকাশিত হয়েছে পিতা দ্রোহী কথাসাহিত্যিক আব্দুর রউফ চৌধুরী ও তার পুত্র নাট্যকার ড. মুকিদ চৌধুরীর মোট পাঁচটি বই। এর মধ্যে দ্রোহী কথাসাহিত্যিক আব্দুর রউফ চৌধুরীর (১৯২৯-১৯৯৬) প্রয়াণদিবস (২৩ ফেব্রুয়ারি) ও জন্মদিবস (১ মার্চ) উপলক্ষ্যে অনিন্দ্য প্রকাশ নিয়ে এসেছে ‘স্বায়ত্তশাসন, স্বাধিকার ও স্বাধীনতা (আগস্ট ১৯৪৭ - মার্চ ১৯৭১)’ গ্রন্থটি। স্বায়ত্তশাসন, স্বাধিকার ও স্বাধীনতা গ্রন্থের মূল উপজীব্য বাংলাদেশের ইতিহাস (আগস্ট ১৯৪৭ - মার্চ ১৯৭১)। স্বায়ত্তশাসন, স্বাধিকার ও স্বাধীনতা গ্রন্থে অর্থনৈতিক-সামাজিক-রাজনৈতিক বিশ্লেষণ-পর্যালোচনা-গবেষণা-তথ্য ও সহজপাঠ্যের মাধ্যমে বাংলাদেশের ইতিহাস (আগস্ট ১৯৪৭ - মার্চ ১৯৭১) অনুধাবনের চেষ্টা করা হয়েছে। ইতিহাসের কলেবর অযথা বৃদ্ধি না করে, গবেষণা ও উপযোগী তথ্য নির্দিষ্ট পরিধির মধ্যে সীমিত রেখে, প্রয়োজন অনুযায়ী ও নির্বাচিত ঘটনাবিষয়ের ওপর যথোপযুক্ত...
বইমেলায় আসছে স্যামুয়েল হক’র ‘কবিতায় স্যামুয়েল’

বইমেলায় আসছে স্যামুয়েল হক’র ‘কবিতায় স্যামুয়েল’

শিরোনাম, সাহিত্য
অমুর একুশে গ্রন্থমেলা ২০২৩- এ প্রকাশিত হবে লেখক ও গবেষক স্যামুয়েল হকের কবিতার বই ‘কবিতায় স্যামুয়েল’। বইটি প্রকাশ করেছে জি-সিরিজ প্রকাশনী। প্রচ্ছদ ও অলঙ্করণ করেছেন খাদেমুল জাহান। এর মূল্য রাখা হয়েছে ২৫০ টাকা। পাওয়া যাবে বাতিঘর প্রকাশনীর স্টলে। বইটির প্রত্যেকটি কবিতা সহজ ভাষায় চমৎকারভাবে উপস্থাপন করা হয়েছে। তার সবগুলো কবিতায় ফুটে উঠেছে জীবন-জগতের ভাববিন্যাস। কবি অন্তর খুঁড়ে যে অনুভূতি প্রকাশ করেছেন তার মধ্যে রয়েছে লালিত্য। কবিতা আপন জগতের বাহিরে রূপান্তরিত জগতে নিয়ে যায় পাঠককে। রূপান্তরিত জগতে নিয়ে যাবার কবিতা দিয়েই ‘কবিতায় স্যামুয়েল’ কবিতা গ্রন্থটির অবয়ব দেয়ার চেষ্টা করেছেন কবি। বইটি সম্পর্কে স্যামুয়েল হক বলেন, কবিতার এ বইটি মানব বোধকেও জাগ্রত করবে। তার কারণ এই গ্রন্থে শব্দের ভেতর আশ্রয় নিয়ে আছে সময়, ইতিহাস ও রহস্যের সাবলীল উচ্চারণ। উল্লেখ্য, পাঠকদের সমৃদ্ধ করতেই প্রকাশিত হলো লে...
ডিএসইসি লেখক সম্মাননা পেলেন আরিফ মজুমদার

ডিএসইসি লেখক সম্মাননা পেলেন আরিফ মজুমদার

শিরোনাম, সাহিত্য
'দুই জীবনের দহন' উপন্যাসের জন্য ঢাকা সাব-এডিটরস কাউন্সিলের (ডিএসইসি) লেখক সম্মাননা-২০২২ পেয়েছেন লেখক ও সাংবাদিক আরিফ মজুমদার। মঙ্গলবার জাতীয় প্রেসক্লাবের আব্দুস সালাম হলে অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ও রাজশাহী সিটি করপোরেশনের মেয়র এ এইচ এম খায়রুজ্জামান লিটনের হাত থেকে লেখক সম্মাননা গ্রহণ করেন আরিফ মজুমদার। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন ডিএসইসির লেখক সম্মাননা-২০২২ এর উপদেষ্টা সম্পাদক মামুন ফরাজী। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জাতীয় গ্রন্থকেন্দ্রের পরিচালক মিনার মনসুর। এছাড়া দেশের বিশিষ্ট কবি-সাহিত্যিক ও সাংবাদিকরা উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠানে গল্প/উপন্যাস, কবিতা, ইতিহাস/গবেষণা, অনুবাদ, শিশুসাহিত্য, ভ্রমণ/বিজ্ঞান ক্যাটাগরিতে লেখক সম্মাননা দেওয়া হয়। উল্লেখ্য, আরিফ মজুমদারের তার 'দুই জীবনের দহন' উপন্যাসটির জন্য এ সম্মাননাটি পেয়েছেন।...
রেজাউর রহমান রিজভী’র কবিতা “বিশ্বকাপ ফুটবল”

রেজাউর রহমান রিজভী’র কবিতা “বিশ্বকাপ ফুটবল”

শিরোনাম, সাহিত্য
বিশ্বকাপ ফুটবলের উত্তাপে উঠেছে জোয়ার সারা বিশ্বতে, হারবে কারা আর জিতবে কে, এই নিয়ে সারা দেশ মেতেছে । চার বছর পরে বিশ্বকাপ পড়বে কার বিজয়ের ছাপ গোলবন্যায় ভাসবে কারা কে বা হাসবে শেষ বেলা। ৩২ দলের দারুণ খেলা ঘুমহীন চোখের উন্মাদনা, গোল্ডেন বুট কিংবা বল পাবে কে ভেবে দিশেহারা। আর্জেন্টিনা নাকি ফ্রান্স কোন দল পাবে এবারের কাপ তবু দ্বন্দ্ব ভুলে সবাই মিলে মাতোয়ারা হই চলো আজ।...
গুলশান চৌধুরীর গল্প “নিষ্ঠুর নিয়তি”

গুলশান চৌধুরীর গল্প “নিষ্ঠুর নিয়তি”

শিরোনাম, সাহিত্য
রমনা পার্কে হাঁটতে হাঁটতে সুপ্তি কিছুটা শান্তি অনুভব করে। তার এই এক স্বভাব, কোনো কিছু হলেই হলো, অমনি জোড়ে জোড়ে হাঁটবে আর হাঁটার মধ্যে নানা রকম সমস্যা গুলো সমাধানের চেষ্টা করবে। আজও তেমনি একটা সমস্যার সমাধান সে করতে চায় কিন্তু কিছুতেই পারছেনা। কারণ আইনের মানুষ হয়ে সে কিছুটা অন্যায় করে ফেলেছে। সুপ্তি সিনিয়র একজন উকিল অথচ একজন জুনিয়রকে দিনের পর দিন হায়, হ্যালো করে যাচ্ছে। কারণ আছে, ছেলেটি অনেক মেধাবী। অনেক কিছুই সুপ্তির বুঝতে কষ্ট হয় কিন্তু বাদল এতো সহজ করে বুঝিয়ে দিবে যে, তার আর কোনো সমস্যাই থাকে না। আরও একটা কারণ আছে, আগে যে সমস্ত সমস্যা সে নিজে কষ্ট করে সমাধান করত এখন বাদলের উপর দিয়ে নিজে আরাম করে। এ ভাবেই ছেলেটি আস্তে আস্তে তার কাছে চলে এসেছে। আর কিই বা করবে, আমানকে আজকাল ঠিকমতো সে কাছে পাচ্ছে না। তাই বাদলই তার একপ্রকার সুখ দুঃখের সাথি বলা যায়। বাদলও নাছোর বান্দা, প্রতিদিন ...
অন্বয় প্রকাশ সাহিত্য পুরস্কার পাচ্ছেন জাতিসত্তার কবি মুহম্মদ নূরুল হুদা

অন্বয় প্রকাশ সাহিত্য পুরস্কার পাচ্ছেন জাতিসত্তার কবি মুহম্মদ নূরুল হুদা

শিরোনাম, সাহিত্য
অন্বয় প্রকাশ সাহিত্য পুরস্কারের জন্য ছড়া-কবিতা বিভাগে মনোনীত হয়েছেন জাতিসত্তার কবি ও বাংলা একাডেমির মহাপরিচালক মুহম্মদ নূরুল হুদা। দেশের সৃজনশীল প্রকাশনা প্রতিষ্ঠান অন্বয় প্রকাশের পাঁচ বছর পূর্তি উপলক্ষে অন্বয় প্রকাশ থেকে প্রকাশ হওয়া লেখকদেরকে ইতিমধ্যে ‘অন্বয় প্রকাশ সাহিত্য পুরস্কার’ প্রদানের ঘোষণা দেওয়া হয়েছে। উল্লেখ্য, অন্বয় প্রকাশ থেকে মুহম্মদ নূরুল হুদার 'হুদা-কথা' গ্রন্থটি প্রকাশ হয়েছে। এই বইটি অন্বয় প্রকাশের প্রথম পাঁচটি বইয়ের একটি। এটি ছিল অমর একুশে বইমেলায় প্রথমবারের মতো অংশগ্রহণ কালের বই। এটি অন্বয় প্রকাশের একটি উল্লেখযোগ্য বই হিসেবে পরিগণিত। শুধু অন্বয় প্রকাশের উল্লেখযোগ্য বই বললে ভুল হবে। কাব্যপ্রেমিদের জন্য গুরুত্বপূর্ণ একটি বই। বিশেষ করে নতুন কবিদের জন্য বইটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ। 'হুদা-কথা'য় আছে দর্শন, ভাবদর্শন, বিষয়-দর্শন, দেশপ্রেম, মা-মাটি, বীজবুনন বা ভূমিকর্ষণের ভ্রূণকথ...
মোঃ আঃ রহিম এর কবিতা “সংস্কৃতির ব্যাকরণ”

মোঃ আঃ রহিম এর কবিতা “সংস্কৃতির ব্যাকরণ”

শিরোনাম, সাহিত্য
সং অর্থ মানু্ষ আর কৃতি তার কর্ম মানুষের জীবন ধারাই সংস্কৃতির মর্ম। আমরা আছি যা তা হলো সংস্কৃতির সংগা বলেছেন ম্যাকাইভার বই সমাজবিদ্যা। একাংশের পথচলা নয়তো সংস্কৃতির শর্ত অধিকাংশে করে যা তা সংস্কৃতির অঙ্গ। সংস্কৃতি চলমান ধীরে ধীরে বদলায় অধিকাংশে মেনে নিলে পুরাতনটা উড়ে যায়। জন চলে মন চলে চলে সংস্কৃতি সময়ের ব্যবধানে বদলে যায় রীতি। গণহারে পথচলায় যদি বদলে যায় আচরণ ধরে নিন বদলেছে সংস্কৃতির ব্যাকরণ। বিজাতীয় বলে যদি আটকে দিই দরজা ঘরে বসে পাব নাকো ভুবনের সেরাটা। মন্দকে ছুরে মেরে ভালোটাকে বেছে নিই নিজেদের যা ভালো সবকিছু রেখে দিই। কথাবার্তা আচরণ সংস্কৃতির অংশ সবকিছু বদলালে জাতি হবে ধ্বংস। চারিদিকে বাজিবেই নতুনের ডংকা ভালোটাকে বেছে নিলে রবেনাকো শংকা। চীন জাপান নিজেরা নিজেরটায় থেকেছে আরবরা নিজেরাও নিজ ধরে রেখেছে। নিজেদের ছুড়ে মেরে পরকে যে ধরেছে শেকড়টা উপরে ফেলে আর কীবা টি...
ভারতের ইন্দিরা গান্ধী স্বর্ণপদক পেলেন এম মিরাজ হোসেন

ভারতের ইন্দিরা গান্ধী স্বর্ণপদক পেলেন এম মিরাজ হোসেন

শিরোনাম, সাহিত্য
সাহিত্যকর্ম ও মানবকল্যাণে অবদানের স্বীকৃতিস্বরূপ ভারত-বাংলাদেশ সাহিত্য সংস্কৃতি পরিষদ কর্তৃক আয়োজিত ‘ভারত বাংলাদেশ সাহিত্য সংস্কৃতি উৎসব-২০২২’ -এ ইন্দিরা গান্ধী স্বর্ণপদক পেয়েছেন বাংলাদেশি সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব, গীতিকবি ও লেখক এম মিরাজ হোসেন। গত ১৬ সেপ্টেম্বর শুক্রবার সন্ধ্যায় ভারতের যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয় মিলনায়তনে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে তার হাতে এই স্বর্ণপদক তুলে দেওয়া হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন রবীন্দ্রভারতী বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য অধ্যাপক ডঃ পবিত্র সরকার। অনুষ্ঠান উদ্বোধন করেন জাতীয় মানবাধিকার সোসাইটি বাংলাদেশের চেয়ারম্যান মুঃ নজরুল ইসলাম তামিজি। বিশেষ অতিথি ছিলেন পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যসভার সদস্য শুভাশিস চক্রবর্তী। এ প্রসঙ্গে এম মিরাজ হোসেন বলেন, ইন্দিরা গান্ধী শ্রদ্ধেয় মহীয়সী নারী। তাঁর নামে প্রবর্তিত পুরস্কার প্রাপ্তিতে আমি গর্বিত এবং সম্মানিত। পুরস্কারটি আমাকে আগামী দিনে সৃ...
দিনু প্রামানিক এর কবিতা “কথার মালা গাঁথি আমরা”

দিনু প্রামানিক এর কবিতা “কথার মালা গাঁথি আমরা”

শিরোনাম, সাহিত্য
কথার পর কথা কথার মালা গাঁথি আমরা। কত কথা! মিষ্টি দুষ্টু বাবুসোনা বাবার কোল জড়িয়ে, গলা পেঁচিয়ে কথা আর কথা। মিষ্টি মিষ্টি মন জুড়ানো আধো ভাষায় গল্প কথা। বাইরে যাব, খেলনা দিবা পড়ার কথা কিন্তু বলবা না।   কথার পর কথা কথার মালা গাঁথি আমরা কত কথা! সকাল থেকে সন্ধে অবধি এটা নাই, ওটা নাই এই শোনো, আমি এত কথা বুঝি না আমারটা কিন্তু চাই, চাই। এগুলি তো বঊয়ের কথা রাতের রঙে আবার অন্য কথা এই, তুমি! তুমি কিন্তু....!   কথার পর কথা কথার মালা গাঁথি আমরা কত কথা! ব্যস্ত অফিস- লক্ষ রঙের গ্রাহক হাজারো চাহিদা, সাধারণের ভীড়ে। বসের চাহিদা তো আরো, চাই চাই আপনিই পারবেন। করে কিন্তু দেখাবেন। ফাইটার আপনি। ফায়ার!! আপনি পারলে, মোদের বাড়বে মান ।   কথার পর কথা কথার মালা গাঁথি আমরা কত কথা! পাখ পাখালীর- ডানা...